1. kabir28journal@yahoo.com : Abubakar Siddik : Abubakar Siddik
  2. kabir.news@gmail.com : Kabir :
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন

আওয়ামীলীগ বিএনপি সংঘর্ষ পুলিশের পরে এবার ছাত্রলীগের মামলা-গ্রেফতার ২

সাংবাদিকের নাম:
  • আপডেট টাইম: বৃহস্পতিবার, ২০ জুলাই, ২০২৩
  • ৩০ ০০০ জন পড়েছে।


স্টাফ রিপোর্টার, জয়পুরহাট

জয়পুরহাটে  পাল্টাপাল্টি কর্মসূচীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে পুলিশের পর  ও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পৃথক দু’টি মামলায় পুলিশ ৮১জন নামীয় ও অজ্ঞাত ৪/৫শ এবং ছাত্রলীগের সভাপতি ১১৭জন নামীয় ৪/ ৫শ জন অজ্ঞাত  এজাহার নামীয় বিএনপি ও অংগসংগঠনের  নেতা-কর্মীকে আসামী করা হয়েছে।

জয়পুরহাট সদর থানায় এ দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আর মামলায় দু’জনকে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের বুধবার সন্ধ্যায় জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির।

গ্রেফকৃতরা হলেন, জয়পুরহাট সদর উপজেলা কৃষক দলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল আলীম ও ছাত্রদল নেতা মারজান হোসেন। তারা দুজনেই পুলিশের মামলায় এজাহারভুক্ত আসামী।  

উল্লেখ্য ১৮ জুলাই মঙ্গলবার বিকেলে বিএনপির পদযাত্রা ও আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ ও উন্নয়নের শোভাযাত্রা শেষে শহরের রেলগেইটের দুপাশে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী পালন কালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে  বিএনপির নেতা-কর্মীদের সাথে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ ঘটে। এ সময় রেলগেইটের পুর্ব পাশ আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের পার্শ্বে আওয়ামী লীগসহ অংগসংগঠনের নেতা কর্মীরা অবস্থান নেয়।  আর পশ্চিম পার্শ্বে বিএনপির কার্যালয়ের পাশে বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেতা কর্মীরা অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে   পাথর ও ইটপাটকেল ছোঁড়া ছুড়ি শুরু হয়। পরে  লাঠি-সোটা নিয়ে উভয় দল সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ৫ রাউন্ড গুলি ও ৬ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এ সময় বিএনপি কার্যালযের আসবাবপত্র ভাংচুর, বিএনপির ২৫জন নেতাকর্মী, আওয়ামী লীগের ১৫জন ও ৪জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে পুলিশের এসআই রুবেল বাদি হয়ে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক গোলজার হোসেন এবং যুগ্ম আহবায়ক মাসুদ রানা প্রধানসহ ৮১ জনের নাম উল্লেখ করে ৪/৫ শ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে। একই ঘটনায় আওয়ামীলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা ও মারপিটের অভিযোগ এনে ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া হোসেন রাজা বাদি হয়ে বিএনপি ও অংগসংগঠনের ১১৭ জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত নামা আরও ৪/৫ শ জন নেতা-কর্মীকে আসামী করে পৃথক মামলা দায়ের করেন।

পুলিশের মামলায় এজাহারভুক্ত আসামী জয়পুরহাট সদর উপজেলা কৃষক দলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল আলীম ও ছাত্রদলের মারজান হোসেনকে বুধবার সন্ধ্যায় জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর জানান,‘সরকারি কাজে বাঁধা প্রদানের অভিযোগে পুলিশ বিএনপি ও অংগসংগঠনের ৮১ জনের নাম উল্লেখ করে ৪/৫শ  নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে। এ ঘটনায় দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যহাত রয়েছে। অন্যদিকে ১৯ জুলাই বুধবা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া হোসেন রাজা বাদি হয়ে বিএনপি ও অংগসংগঠনের ১১৭ জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত ৪/৫শ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে। 

প্রসঙ্গত: মঙ্গলবার বিকেলে দেশব্যাপী দলীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র নেতাকর্মীরা শহরের পৃথক এলাকা থেকে শান্তি ও উন্নয়ন শোভাযাত্রা এবং পদযাত্রা শুরু করে। পদযাত্রা নিয়ে নেতা-কর্মীরা বিকেল পৌনে ৫টায় বিএনপির জেলা কার্যালয়ের পেছনে শহরের প্রধান সড়কের রেলগেট এলাকার পশ্চিম অংশে অবস্থান নেয়। এ সময় আওয়ামীলীগের শান্তি ও উন্নয়ন শোভাযাত্রা দলীয় অফিসে ফেরার সময় পেছন থেকে নেতা-কর্মীদের একাংশ শহরের প্রধান সড়কের রেলগেট এলাকার পূর্ব অংশে বিএনপি নেতা-কর্মীদের মুখোমুখি অবস্থান নিলে উত্তেজনার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে উভয় দলের কমপক্ষে ৪০নেতা-কর্মী ও ৪ পুলিশ সদস্যসহ ৪৪জন আহত হয়। এদের মধ্যে ইফাদ হোসেন  নামে এক ছাত্রলীগ কর্মীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  সংঘর্ষ চলাকালে বিএনপি’র জেলা কার্যালয় ভাংচুরের ঘটনাও ঘটে। পুলিশ সটগানের ৫ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ৬ রাউন্ড  টিয়ারসেল নিক্ষপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।



 
 
 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরো সংবাদ